আইফোনের প্রতি সবার দুর্বলতা আছে। ব্যাংক থেকে লোন করে, টাকা ধার করে কিংবা ইএমআই এর মাধ্যমে হোক, আইফোন একটা যোগার করতে হবে। প্রয়োজনের তুলনায় সোশ্যাল স্ট্যাটাস রক্ষা করতে অনেকেই আইফোন কিনে থাকে। শুনলে অবাক হবেন যা, আইফোন ৬ প্লাস তৈরী করতে খরচ হয় ২৩৬ ডলার শুধু মাত্র এবং সেটা বিক্রি হয় ৭৪৯ ডলারে । এই রকম একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে গবেষণা ও বিশ্লেষক সংস্থা আইএইচএস (IHS) টেকনোলজি।

আইফোন 6S প্লাস মোবাইল ফোনে হার্ডওয়্যার রয়েছে, A9 SOC, 3D টাচ ডিসপ্লে, ভালো ক্যামেরা সেন্সর, গরিলা গ্লাস, ৪ স্তর সুরক্ষা, নতুন Taptic ইঞ্জিন এবং একটি মহাকাশযান গ্রেড সিরিজের 7000 অ্যালুমিনিয়াম বডি। এত কিছু দেওয়ার পর এর তৈরী খরচ পরে মাত্র ২৩৬ ডলার।

আইএইচএস প্রযুক্তি তার প্রতিবেদনে আইফনের বিভিন্ন উপকরণের দাম উল্লেখ করেছেন যে, এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য দাম হল 3D টাচ প্রায় $ ৫২.৫০, ১৬ জিবি মেমরি দাম পরে $৫.৫ ডলার, ক্যামেরা সেন্সর $ ২২.৫০, অন্যান্য যান্ত্রিক এবং বৈদ্যুতিক উপকরন $ ৪২ পর্যন্ত সংকলিত।

এত গেল আইফোনের সব চেয়ে ভাল উপকরনের দাম। এই রকম ভাবে আইফোনের প্রত্যেকটি ডিভাইসের উৎপাদন খরচ খুবই কম।  তবে, এত টাকা আয় করার পরেও আইফোন তার কর্মীদের জন্য বেশী টাকা খরচ করে না। একজন কর্মীর ঘণ্টা পিছু বেতন মাত্র ১২০ টাকা এবং একটি আইফোন তৈরী করতে সময় লাগে মাত্র ২৪ ঘণ্টা। এর সাধে কম্পানির গবেষণা ও উন্নয়ন, পরিবহন, কর, বিপনন সব কিছু মিলিয়ে খরচ ধরলেও আইফোন বিক্রি করে প্রায় করে তারা প্রায় ৩০০% মুনাফা করে।

সবার একটাই প্রশ্ন শুধু মাত্র ব্র্যান্ডভ্যালুর কারনে আইফোনের দাম এত বেশী ?

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY