ডেটা প্যাকেজ কিনে কৌশল অবলম্বন করে মোবাইলে ইন্টারনেট ব্যবহার করলে  ডেটা খরচটা নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়। জেনে নিন তেমন কিছু উপায়-

# ডেটার হিসেব রাখুন: মোবাইলের সেটিংস-এ যান। তারপর যান ডেটা ইউসেজ অপশনে। দেখতে পাবেন, কোন অ্যাপ কত বেশি ডেটা খরচ করছে। এর মধ্যে অপ্রয়োজনীয় কোনো অ্যাপকে মনে হলে, ডিলেট করে ফেলুন।

# অফলাইন নেভিগেশন: গুগল ম্যাপ ইন্টারনেট ডেটা প্রচুর খরচ করে। তাই গুগল ম্যাপ ব্যবহার করুন অফলাইন হয়ে।

# কমপ্রেস করুন ক্রোম পেজ: ক্রোম খুলে ডান দিকের একেবারে ওপরে তিনটি বিন্দুর আইকনটিতে ক্লিক করুন। এবার চলে যান সেটিংস-এ। সেখান থেকে ডেটা সেভার। অন করে দিন।

# ব্রাউজার দিয়ে ফেসবুক ব্যবহার করুন: অনেকেই বলেন, ফেসবুক মোবাইল ইন্টারনেটের সবচেয়ে বেশি ডেটা খরচ করে। এমনকি, লাইট ভার্সনটাও। তাই আপনি দ্বারস্থ হতে পারেন টিনফয়েল-এর। এই ওয়েব অ্যাপ দিয়ে সব পুশ নোটিফিকেশন-সহ ফেসবুক ব্যবহার করা যায় কম ডেটা খরচে।

# অনলাইনে গান শোনা নয়: অনলাইনে গান শোনার যে সব অ্যাপ আছে, প্রায় সবগুলোই প্রচুর পরিমাণে ডেটা খরচ করে। তার চেয়ে কম ডেটা যায় ডাউনলোডে। যত খুশি গান শুনুন, কিন্তু ডাউনলোড করে। দেখবেন ইন্টারনেটের ডেটা অনেকটাই সাশ্রয় হচ্ছে।

# গুগল ডক অফলাইন: শুধু গুগল ম্যাপই নয়, গুগলের আরো কিছু সেবা বেশি ইন্টারনেট ডাটা খরচ করে। এই তালিকায় রয়েছে গুগল ডক-ও! তাই কিছু নোট রাখার দরকার হলে এটাও ব্যবহার করুন অফলাইনে।

# ছবি, ভিডিও আপলোড-ডাউনলোড: যতটা পারেন, ছবি ও ভিডিও আপলোড-ডাউনলোড কমিয়ে দিন। দেখবেন, চমৎকার ডেটা সাশ্রয় হচ্ছে।

# অফলাইন অ্যাপ আর গেম: কিছু কিছু অ্যাপ, গেম থাকে যাদের অনবরত আপডেট করতে হয়। এমন জিনিস ফোনে রাখবেন না। তাহলেই ইন্টারনেট ডেটা সাশ্রয় সহজ হয়ে যাবে।

# ব্যাকগ্রাউন্ড ডেটা বন্ধ করুন: কিছু কিছু অ্যাপ রয়েছে যাদের সিঙ্ক করে রাখতে হয়। যেমন, জি-মেইল। এগুলোকে সিঙ্ক করে না রাখলেই মোবাইল ইন্টারনেটের ডেটা বাঁচবে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY