Zunaid-Ahmed-Palak-speech

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, ২০২১ সালের মধ্যে সারাদেশকে শতভাগ ইন্টরনেট সংযোগ ও ৫০ শতাংশ ব্রডব্যান্ড সংযোগের আওতায় নিয়ে আসতে কাজ করছে সরকার।

বৃহস্পতিবার রাতে ভারতের নয়া দিল্লিতে গ্লোবাল সাইবার স্পেস কনফারেন্সে (GCCS 2017: Plenary Session 2 – Cyber4Digitallnclusion) ‘ব্রিজিং দ্য ডিজিটাল ডিভাইড-এমপাওয়ারিং বাই টেকনোলজি লেড ইনক্লুসিভনেস’  (Bridging the digital divide – Empowering by Technology led Inclusiveness) শীর্ষক প্লেনারি সেশনের আলোচনায় তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ ঘোষণার পর থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুদক্ষ নেতৃত্বে ও প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের নির্দেশনায় বাংলাগভনেট, ইনফো সরকার-২ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয়েছে এবং ইনফো সরকার-৩ প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে। এছাড়াও কানেকটেড বাংলাদেশ শীর্ষক আরও একটি প্রকল্প বাস্তবায়নের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে’।

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘সারাদেশে আমরা ৫ হাজারের অধিক ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের মাধ্যমে জনসাধারণকে প্রায় ২শ’ রকমের ডিজিটাল সেবা প্রদান করছি। এর ফলে জনগণ যেমন সাশ্রয়ী মূল্যে ডিজিটাল সেবা গ্রহণ করতে পারছে, তেমনি এর মাধ্যমে সরকারি সেবার গ্রহণে মানুষের ভোগান্তিও কমেছে’।

‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ প্রতিষ্ঠায় নানামুখী কর্মকাণ্ড উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, প্রযুক্তি বৈষম্য হ্রাস করতে বিদ্যমান চ্যালেজ্ঞ গুলোর মধ্যে ডিজিটাল অবকাঠামো ও সেবার সহজলভ্যতা, সাশ্রয়ী মূল্যে ইন্টারনেট সেবা, ডিজিটাল যন্ত্র ও অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহারের পর্যাপ্ততা বৃদ্ধি, দক্ষতা সম্পন্ন জনগোষ্ঠীর অভাব এবং সর্বোপরি সমন্বিতভাবে সামাজিক ও অর্থনৈতিক সমতা সৃষ্টি অন্যতম।

পলক বলেন, ‘তাই আমরা এসব বিষয়ে মনোযোগ দিয়েছি এবং চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় নানা ধরণের কার্যক্রম বাস্তবায়ন করে চলেছি। এর মাধ্যমে আমরা ২০২১ সালের মধ্যে হার্ডওয়্যার, সফটওয়্যার এবং গবেষণা ও উন্নয়ন খাত থেকে সুনির্দিষ্টভাবে ৫ বিলিয়ন ডলার আয় করতে সক্ষম হবো’।

ভারতের ইলেকট্রনিক্স, তথ্যপ্রযুক্তি ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী আলফনস কান্নানথানম, ঘানার যোগাযোগ মন্ত্রী অশ্রুলা ওয়োসু-একুফুল এবং আন্তর্জাতিক টেলিকমিউনিকেশন সংস্থা’র মহাপরিচালক হাওলিন ঝাও প্রমুখ প্লেনারি সেশনে বক্তব্য রাখেন।

এই সম্মেলনে প্রায় ২০টি দেশের তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক মন্ত্রীবর্গ এবং ১৩৬ দেশের আলোচকবৃন্দ বিভিন্ন সেশনে অংশ নেন। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বৃহস্পতিবার সকালে এই সম্মেলন উদ্বোধন করেন।

NO COMMENTS