Picture Credit- @ECOMRecruitment/twitter

সেবা খাতে আয় বেড়েছে অ্যাপলের। অ্যাপ স্টোর, অ্যাপল পে আর সঙ্গীত স্ট্রিমিং সেবা থাকা এই খাত থেকে এ প্রান্তিকে অ্যাপলের আয় হয়েছে ৮৫০ কোটি ডলার। অংকটা আগের বছরের একই প্রান্তিকের তুলনায় ৩৪ শতাংশ বেশি।

চলতি বছর জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর প্রান্তিকে ৪.৬৬ কোটি ডলারেরও বেশি মূল্যের আইফোন বিক্রি করেছে অ্যাপল। এক বছর আগের তুলনায় অংকটা তিন শতাংশ বেশি। ফলে এই খাত থেকে প্রতিষ্ঠানটির আয় হয়েছে ২৮৮০ কোটি ডলার, যা প্রতিষ্ঠানটির মোট আয়ের অর্ধেকেরও বেশি। ম্যাক, আইফোন, অ্যাপল ওয়াচসহ অন্যান্য পণ্যের বিক্রিও ভালো হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

আর্থিক প্রান্তিকের ভালো ফলাফল আর আইফোন X বাজারে আসার পর অ্যাপলের শেয়ারমূল্য বেড়ে নতুন রেকর্ড গড়েছে। এই উন্নতি ছুটির মৌসুমেও অব্যাহত থাকবে বলেই আশা করেছেন কুক।

কিন্তু অ্যাপলে দীর্ঘদিন ধরে থাকা দুটি সমস্যা এবার হয়তো ঠিক করতে যাচ্ছেন কুক, বলা হয়েছে রয়টার্স-এর প্রতিবেদনে। একটি হচ্ছে- লাভের জন্য সর্বশেষ ফ্ল্যাগশিপ আইফোনের উপর বিশাল নির্ভরতা বজায় রাখা, আর অন্যটি হচ্ছে- বাজেট সচেতন ক্রেতাদের অ্যাপলের বাস্তুতন্ত্রে নিয়ে আসার মতো প্রস্তাবের অভাব।

Picture Credit- @reuters/twitter

বর্তমানে গণমাধ্যমগুলোর মূল আকর্ষণ কেড়েছে আইফোন X। ৯৯৯ ডলার দামের এই আইফোন ছাড়াও আরও চারটি ভিন্ন আইফোন রয়েছে বাজারে। যার মধ্যে আইফোন এসই এখন মনযোগের প্রায় পুরো বাইরেই বলা চলে। ৩৪৯ ডলারের এই আইফোনটি ভারতের বাজারে অ্যাপলের আয় দ্বিগুণ করতে বড় ভূমিকা রেখেছে।

উল্লেখ্য খরচ বাড়লেও, অ্যাপল বলেছে তাদের মোট লাভ হয়েছে ১০৭০ কোটি ডলার, যা আগের বছরের তুলনায় ১৮ শতাংশ বেশি। প্রতিষ্ঠানটির মোট আয় ১২ শতাংশ বেড়ে ৫২৬০ কোটি ডলার হয়েছে।

NO COMMENTS