গতকাল রাত থেকেই ব্রাউজার দিয়ে গুগলে ঢুকতে গিয়ে বিপত্তিতে পড়েছেন অনেকেই। দেখা যাচ্ছিল গুগল সার্চ দিলে তা রিডাইরেক্ট হয়ে চলে যাচ্ছে একটি ফেসবুক পেইজে।

এই বিরক্তিকর সমস্যার কারণ হলো বাংলাদেশের ‘ডট বিডি’ ডোমেইন হ্যাক করা হয়েছিল। ১৭ ঘণ্টা পরও হ্যাকারের হাত থেকে ডোমেইকে পুরোপুরি মুক্ত করতে পারেনি বিটিসিএল!

আকাশ নামের ওই বাংলাদেশি তরুণ হ্যাকার ডট বিডি ডোমেইনের মোট চারটি ওয়েবসাইট হ্যাক করেন। সাইটগুলো হলো,  robi.com.bd, সার্চ ইঞ্জিন জায়ান্ট গুগলের বাংলাদেশ ডোমেইন google.com.bd, বাংলালিংকের banglalink.com.bd এবং ittefaq.com.bd। সাইবার নিরাপত্তা বিষয়ে বিটিসিএলের উদাসীনতা এবং অযোগ্যতাকে সবার সামনে প্রকাশ করতেই তার এই ‘উদ্যোগ’।

শনিবার (৩১ ডিসেম্বর) মধ্যরাতের পর থেকে ওই চারটি ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে পারছেন না ব্যবহারকারীরা। রিডাইরেক্ট করার পর ওইসব ওয়েবসাইটে লগইন করতে গেলে চলে আসছে Sayzar Rahman Akash নামের একজনের প্রোফাইল। ওই প্রযুক্তিবিদ বিটিসিএলের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

এর আগে গত ২০ ডিসেম্বর একই সমস্যায় পড়েছিল বাংলাদেশের ডোমেইন ডটবিডি। তবে সন্ধ্যা সাতটা থেকে সাইটগুলো ঠিক হয়েছে বলে দাবি করেছে বিটিসিএল।

‘বিটিসিএল হ্যাকিং ওরফে নিরাপত্তা ত্রুটি নিয়ে কিছু কথা’নিয়ে Sayzar Rahman Akash ফেসবুকে লিখেছেন, ‘বিটিসিএলের নিরাপত্তা/ত্রুটি নিয়ে আর কতোবার বলবো?’

‘গত ২৩ সেপ্টেম্বর যখন বিটিসিএলে ঢুকি, মন চাইলো সব ডাউন করে দিয়ে দেই। কিন্তু অবস্থা বেগতিক চিন্তা করে বিটিসিএলে ফোন লাগাই, কয়েক দফা চিল্লা-পাল্লা করে সাময়িক সমাধান। কিন্তু নাহ্‌, উনাদের নিরাপত্তা নিয়ে সেম উদাসীন ভাব। ফলাফল গত ২০ ডিসেম্বর পাকিস্তানি হ্যাকার হ্যাক করে বসলো’।

‘মনে মনে ভাবি যে, দেশের মধ্যেই যখন নিরাপত্তা নিয়ে উদাসীনতা, তখন যদি বাইরে থেকে আক্রমণ করে লজ্জা দেয়, তাহলে দোষ কার? দোষ যাদের বিটিসিএলের নিরাপত্তা/ত্রুটি নিয়ে অবহেলা করছে।

এবার প্রধানমন্ত্রী ডট বাংলা ডোমেইন চালু করেছেন। দেশকে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। তখন কতিপয় লোকের অবহেলার কারণে দেশের সাইবার নিরাপত্তার দেওয়াল খসে পড়ছে’। চারটি ওয়েবসাইট ডাউন করা নিয়ে তিনি লিখেছেন, ‘মূলত এটি কোনো হ্যাক নয়, আমিও হ্যাকার নই। চিন্তা করুন, বাংলাদেশের সকল সরকারি, শিক্ষা, মন্ত্রণালয়, স্কুল, কলেজ, অপারেটর, কোম্পানি, এছাড়া গুগল, পত্রিকা, ই-কমার্সগুলি বন্ধ হয়ে গেলে কি হবে! জাস্ট বিটিসিএলের ত্রুটির জন্য। তবুও কেন জানি উদাসীনতার ফলে কোনো নিরাপত্তাজনিত চিন্তা-ভাবনা তাদের মাথায় কাজ করে না। এমনকি কয়েক দফা ফোন করে দিলেও না!’এর আগে গত ২০ ডিসেম্বর এক পাকিস্তানি হ্যাকার google.com.bd এর পথ বদলে দিয়েছিলেন। সেদিন এক নোটিসে তিনি লিখেছিলেন, Security is just an illusion। এবারের হ্যাকার আকাশ নামের সেই বাংলাদেশি তরুণ তার ফেসবুক ওয়ালে হ্যাকিংয়ের দায় স্বীকার করে লিখেছেন, “পাকিস্তানি হ্যাকার লজ্জা দিয়ে যায়, তবুও শিক্ষা হয় না। কথায় আছে, সোজা আঙুলে ঘি না উঠলে আঙ্গুল বাঁকা করতে হয়। তাই বছরের শেষ দিনে #31st এ কাজ করতে বাধ্য হচ্ছি। “

শেষে তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, টেলি যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী ও তথ‌্য-প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রীকে সবার আগে নিরাপত্তা নিশ্চিত করার অনুরোধ জানিয়ে আকাশ তার বার্তা শেষ করেছেন ‘জয় বাংলা’ বলে।

তবে এ ব্যাপারে বিটিসিএলের কেউ মন্তব্য করতে রাজী হয়নি।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY