বাংলাদেশে প্রথমবারের মত সাইবার অপরাধবিষয়ক আন্তর্জাতিক কর্মশালা শুরু

কমনওয়েলথ টেলিযোগাযোগ সংস্থার (সিটিও) উদ্যোগে (Commonwealth Telecommunication Organization (CTO) ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ ও বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) (BTRC) সহযোগিতায় সাইবার অপরাধ ও নিরাপদ ইন্টারনেটবিষয়ক দুদিনব্যাপী আন্তর্জাতিক কর্মশালা শুরু হয়েছে ঢাকায়। আজ মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর লা মেরিডিয়ান হোটেলে কর্মশালাটি শুরু হয়েছে।চলবে আগামীকাল বুধবার পর্যন্ত।

‘ডিজিটাল বাংলাদেশ: সাইবার অপরাধ, নিরাপদ ইন্টারনেট ও ব্রডব্যান্ড’ শিরোনামের এই কর্মশালা জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী প্রধান অতিথি হিসেবে উদ্বোধন করেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর ‘সেফটি অন ইন্টারনেট’ শীর্ষক অধিবেশনে তারানা হালিম বলেন, সাইবার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগগুলো বিচ্ছিন্নভাবে কাজ করছে। এ ব্যাপারে সমন্বয় আনা হলে সাইবার নিরাপত্তার বিষয়ে কার্যকর ফলাফল আসবে।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী বলেন, ফেসবুকের মাধ্যমে আপত্তিকর কনটেন্ট যাতে না ছড়ায়, সেজন্য চলতি মাসেই ফেসবুক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনায় বসা হবে। ফেসবুক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আগের আলোচনায় আপত্তিকর অনেক কনটেন্ট ও পেজ বন্ধ করা গেছে। বিষয়টিকে এগিয়ে নিতে এবারে আলোচনা হবে।

তারানা হালিম বলেন, সমস্যাগুলো সমাধানের জন্য মার্চ মাসে ফেসবুক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে ব্যাপক আলোচনার জন্য বসছি, সমস্যাগুলো উগ্রবাদ, জঙ্গিবাদ ছড়ায় যে পেইজগুলো বা বিদেশ থেকে যেগুলো পরিচালিত হয় সেগুলোর ব্যাপারে আমরা যেন কার্যকর পদক্ষেপ নিতে পারি। উসকানিমূলক, জঙ্গিবাদ ছড়ায় এ ধরনের পেজ তারা বন্ধ করেছেন। ফেসবুকের অনুবাদকও রয়েছে, তাদের বুঝতে হবে কনটেন্টটা কী। তিনি বলেন, সমস্যা হলো যেগুলো ইউআরএল পাঠাতে হয়, অনেকগুলো থাকে ফেইক (মিথ্যা), তখন ওই ব্যক্তি পর্যন্ত পৌঁছাতে পারছি না। আইনের প্রয়োগ তখনই হবে যখন ব্যক্তিকে চিহ্নিত করতে পারব।

কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন বিটিআরসির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) মো. আহসান হাবিব খান এবং কমনওয়েলথ টেলিযোগাযোগ সংস্থার মহাসচিব শোলা টেইলর।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY