Data-for-decision-in-health

শনিবার স্বাস্থ্য ও পরবিার কল্যাণ মন্ত্রণালয়রে স্বাস্থ্য অধদিপ্তর-এর উদ্যোগে হোটলে লা মরেডিয়িানে “ডাটা ফর ডিসিশন ইন হেলথ” (Data for Decision (D4D) in Health) র্শীষক তনি দনিব্যাপী স্বাস্থ্য বষিয়ক এক আর্ন্তজাতকি সম্মলেনরে আয়োজন করা হয়ছে। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদশে সরকাররে মাননীয় স্বাস্থ্য ও পরবিার কল্যাণ প্রতমিন্ত্রী জনাব জাহদে মালকে, এমপি প্রধান অতিথি হিসেবে উক্ত সম্মলেনরে উদ্বোধন ঘোষণা করনে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তর-এর মহাপরিচালক প্রফেসর ডাঃ আবুল কালাম আজাদ। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগ্রাম, ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন, আইসিডিডিআর বি, ইউনিসেফ, ইউএনএফপিও, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা, ভাইটাল ষ্ট্রেটেজি ব্লুমবার্গ, ইউএসএআইডি-এর এমএসএইচ ও মেঝার এভালুয়েশন এবং এইচআইএসপি বাংলাদেশ-এর সহযোগিতায় এই সম্মেলন আয়োজন করা হয়েছে।

মাননীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী জনাব জাহেদ মালেক, এমপি বলেন, “আমরা কমিউনিটি ক্লিনিক এর মাধ্যমে প্রান্তিক জনগোষ্ঠির কাছে স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দিয়েছি এবং ইতোমধ্যে মাতৃস্বাস্থ্য ও শিশু মৃত্যু হার কমিয়ে মিলেনিয়াম ডেভেলপমেন্ট গোল অর্জনের মাধ্যমে সারাবিশ্বে বাংলাদেশকে পরিচয় করে দিয়েছি”। তিনি আরো বলেন, নির্ভরযোগ্য স্বাস্থ্য তথ্য, উন্নত স্বাস্থ্য সেবা এবং শক্তিশালী স্বাস্থ্য ব্যবস্থার মাধ্যমে বর্তমান সরকার জনগনের দোরগোড়ায় স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দিচ্ছে। এই সম্মেলনে সভাপতির বক্তব্যে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ওপেন এমআরএস, দেশের সব স্বাস্থ্য বার্তা, ডিসট্রিক্ট হেলথ ইনফরমেশন সিস্টেম সহ প্রযুক্তিভিত্তিক স্বাস্থ্যতথ্য ব্যবস্থার মাধ্যমে ডিজিটাল বাংলাদেশে স্বাস্থ্যখাতের গুরুত্বপূর্ণ অর্জনগুলো তুলো ধরেন।

প্যানেল আলোচনায় সাবেক স্বাস্থ্য সচিব জনাব হুমায়ুন কবির, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বাংলাদেশ এর হেলথ সিস্টেম বিভাগের প্রধান ডঃ ভালেরি অলিভিয়েরা, ডিসট্রিক্ট হেলথ ইনফরমেশন সিস্টেম এর নরওয়ের অসলো বিশ্ববিদ্যালয়ের  জহান ইভার সায়েভ, যুক্তরাষ্ট্রের ভাইটাল ষ্ট্রেটেজির ডেপুটি ডিরেক্টর রিচার্ড দেলানি এবং টেলিনর হেলথ এর প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডঃ ফ্রেড হারশ, আইসিডিডিআরবি,র ডেপুটি প্রজেক্ট সমন্নয়ক ডঃ জান্নাতুল ফেরদৌস এবং ইউএসএআইডি-এর সিয়াপস্ প্রোগ্রামের গোলাম কিবরিয়া বিদ্যমান স্বাস্থ্য তথ্য ব্যবস্থার বিভিন্ন সম্ভাবনা, সীমাবদ্ধতা, স্বাস্থ্য তথ্যের গুণগত মান, তথ্য সংগ্রহ ও বিশ্লেষণে সক্ষমতা বাড়ানোর উপায় এবং স্বাস্থ্য নীতি প্রণয়নসহ স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনায় নির্ভরযোগ্য তথ্য–উপাত্ত গড়ে তোলার সংস্কৃতি গড়ে তোলার উপর গুরুত্ব আরোপ করেন।

পৃথিবীর ২০টিরও বেশি দেশের সরকারি-বেসরকারি সংস্থার প্রতিনিধিবৃন্দ, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এবং বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাবৃন্দ, উন্নয়ন সহযোগী, প্রাইভেট সেক্টর, স্বাস্থ্য গবেষক, স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপক, নীতি নির্ধারক, গণমাধ্যম থেকে আগত প্রতিনিধিবৃন্দ এই সম্মেলনের প্যানেল আলোচনা এবং বিভিন্ন সংস্থার স্বাস্থ্য তথ্য ব্যবস্থার ওপর স্টল ভিত্তিক পরিদর্শনে অংশ নিয়েছেন।

এই সম্মেলনে প্রযুক্তিভিত্তিক স্বাস্থ্য তথ্য ব্যবস্থাসহ বাংলাদেশের স্বাস্থ্যখাতের গুরুত্বপূর্ণ অর্জনগুলো তুলে ধরা হয়েছে। সম্মেলনে স্বাস্থ্যবিষয়ক মোট ৮টি সেমিনার আয়োজন করা হয়েছে। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জনাব মোহাম্মদ নাসিম, এমপি আগামীকাল বিকেলে সম্মেলনের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন। তৃতীয় দিনে ঢাকায় ও ঢাকার পার্শ্ববর্তী জেলায় স্বাস্থ্যতথ্য ব্যবস্থার বাস্তব প্রয়োগ দেখার জন্য ফিল্ড পরিদর্শনে যাবেন দেশি-বিদেশি অংশগ্রহণ কারীরা।

সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়-এর সচিব মোঃ সিরাজুল ইসলাম, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর-এর পরিচালক (এমআইএস) ডাঃ নাজিমুন নেসা, ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন বাংলাদেশ-এর প্রতিনিধি মারিও রনকুনি, ইউনিসেফ বাংলাদেশ-এর প্রতিনিধি এডওয়ার্ড বেইগবেডার এবং গণমাধ্যম কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY