First smartphone factory launched in Bangladesh

বৃহস্পতিবার গাজীপুরের চন্দ্রায় ওয়ালটনের এই স্মার্টফোন কারখানা উদ্বোধন করেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম।

প্রতিমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন,“দেশের জন্য আজ একটি ঐতিহাসিক দিন। এই কারখানা উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে ডিজিটাল বাংলাদেশের নতুন অধ্যায়ের সূচনা হল।”

বাংলাদেশেই মোবাইল ফোন উৎপাদনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্নের কথা তুলে ধরেন তারানা।

“আজ সেই স্বপ্ন পূরণের সাথী হল ওয়ালটন। সেই সঙ্গে মোবাইল ফোন উৎপাদনকারী দেশের তালিকায় নাম লেখালো বাংলাদেশ।”

ওয়ালটনের প্রশংসা করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, মানসম্পন্ন হ্যান্ডসেট তৈরির ক্ষেত্রে বিটিআরসি যে সব মানদণ্ড রয়েছে তা পূরণ করেই স্মার্টফোন কারখানা স্থাপন করেছে এই প্রতিষ্ঠানটি।

“তারা প্রযুক্তিগতভাবে এগিয়ে যাবার দৃঢ় প্রত্যয়ে পুরোপুরি প্রস্তুত। এখন আমাদের দায়িত্ব তাদের অগ্রযাত্রাকে মসৃণ করা।”

প্রায় ৫০ হাজার বর্গফুট জায়গা জুড়ে গড়ে তোলা হয়েছে ওয়ালটন ডিজিটেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড।

এখানে রয়েছে হ্যান্ডসেটের ডিজাইন ডেভেলপ, গবেষণা ও উন্নয়ন বিভাগ, মাননিয়ন্ত্রণ বিভাগ ও টেস্টিং ল্যাব। স্থাপন করা হয়েছে বিশ্বের সর্বাধুনিক জাপান ও জার্মান প্রযুক্তির যন্ত্রপাতি। কর্মসংস্থান হয়েছে প্রায় এক হাজার লোকের।

প্রাথমিকভাবে এখানে উৎপাদন হবে বার্ষিক ২৫ থেকে ৩০ লাখ ইউনিট হ্যান্ডসেট। স্থাপন করা হয়েছে ছয়টি প্রোডাকশন লাইন। প্রক্রিয়াধীন রয়েছে আরো ১০টি প্রোডাকশন লাইন স্থাপনের কাজ।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY