পাঁচ কোটি রুবল হ্যাকিংয়ের শিকার রুশ ব্যাংক গ্রাহকরা

রয়টার্স-এর প্রতিবেদনে বলা হয়, ক্রন নামের এই সাইবার অপরাধীদের দলটি রাশিয়ায় গ্রাহকদের এসএমএস-এর মাধ্যমে অর্থ লেনদেনের সুযোগ দেওয়া সেবায় আঘাত হানে। (Hacking in Russian bank) এর মাধ্যমে ব্যবহারকারীদের ফোন আক্রান্ত করে তারা ওই ডিভাইসগুলোয় ‘পুশ এসএমএস’ পাঠায়। এসব এসএমএস-এ ব্যাংকগুলোকে ওই ব্যবহারকারীদের অ্যাকাউন্ট থেকে হ্যাকারদের অ্যাকাউন্টে অর্থ পাঠানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়।

তাদের এই প্রচেষ্টায় সাইবার অপরাধের হিসাবে হাতিয়ে নেওয়ার অর্থের পরিমাণ অল্প, তা হচ্ছে পাঁচ কোটি রুবল বা ৮৯২০০০ ডলারের বেশি। কিন্তু ফ্রান্স ও আরও কয়েকটি পশ্চিমা দেশের ব্যাংকগুলোর গ্রাহকদের লক্ষ্য করে ক্ষতিকর সফটওয়্যার রেখেছিল।

ভুয়া মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে সাইবার অপরাধীরা রুশ ব্যাংক গ্রাহকদের প্রতারণার জালে ফেলে। ভুয়া অ্যাপের সঙ্গে ব্যবহার করা হয় পর্নোগ্রাফি ও ইকমার্স প্রোগ্রামও, রুশ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে চালানো হামলা নিয়ে সাইবার নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠান গ্রুপ-আইবি’র তদন্তে এমন তথ্য বের হয়ে আসে।

এক বিবৃতিতে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়, হ্যকারদের মধ্যে চারজনকে শাস্তি দেওয়া হয়েছে আর বাকিরা গৃহবন্দী অবস্থায় আছে। তারা আরও বলে, “ছয়টি অঞ্চলে ২০টি তল্লাশি অভিযানে পুলিশ কম্পিউটার, কয়েকশ’ ব্যাংক কার্ড ও ভুয়া নামে নিবন্ধিত সিম কার্ড পাওয়া গেছে।”

গ্রুপ-আইবি জানায়, ২০১৫ সালে প্রথম ক্রন ম্যালওয়্যার শনাক্ত করা হয়। আর আটকের আগ পর্যন্ত হ্যাকাররা এক বছর ধরে এই ম্যালওয়্যার ব্যবহার করছিলেন।

২০১৬ সালের নভেম্বরে রুশ আইন-শৃংখলাবাহিনী ১৬ জন সন্দেহভাজনকে আটক করে। তাদের চালানো আক্রমণে রাশিয়ার ১০ লাখ স্মার্টফোন আক্রান্ত হয়, গড় হিসাবে প্রতিদিন সাড়ে তিন হাজার ডিভাইস আক্রান্ত হয়েছে বলে সাইবার নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে।

আটকের আগ পর্যন্ত শুধু রাশিয়াতেই আক্রমণ পরিচালনা করলেও, তারা ফরাসী ঋণদাতা প্রতিষ্ঠান ক্রেডিট অ্যাগ্রিকোল, বিএনপি পরিবাস ও সোসিয়েত জেনারালে-তে আক্রমণ চালানোর পরিকল্পনাও করেছিল।

সূত্র ঃ- রয়টার্স

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY