হ্যাকিং হুমকিতে ১০০ কোটি অ্যান্ড্রয়েড ফোন!

Credit:- ICT News

বিশ্বের প্রায় ১০০ কোটি অ্যান্ড্রয়েড ফোনে ‘কোয়াডরুটার’ নামের ভাইরাসটির আক্রমণ ঘটেছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। এর ব্যবহারে হ্যাকাররা ফোনের ক্যামেরাসহ যাবতীয় ডেটায় প্রবেশ করতে পারবেন বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বাজারের জনপ্রিয় কয়েকটি স্মার্টফোন, যেমন: গ্যালাক্সি এস ৭, এস ৬, এইচটিসি ওয়ান এম ৯, এইচটিসি ১০, নেক্সাস ৫ এক্স, নেক্সাস ৬পি ও নেক্সাস ৬ হ্যাকিং ঝুঁকিতে আছে। এমনকি সবচেয়ে নিরাপদ স্মার্টফোন হিসেবে ব্ল্যাকবেরির দাবি করা ডিটিইকে ৫০ ফোনটিও ঝুঁকিতে। সব মিলিয়ে ৯০ কোটি অ্যান্ড্রয়েডচালিত স্মার্টফোন হ্যাকিং ঝুঁকিতে আছে।

উদাহরণ হিসাবে বলা যায়, একজন আক্রমণকারী কারো ফোনে কোনো অ্যাপ ডাউনলোড করার জন্য একটি লিঙ্ক দিতে পারেন। এই অ্যাপটি ইনস্টল হতে কোনো পারমিশন লাগবে না। এর মাধ্যমে হ্যাকার ফোনের ‘রুট’ অ্যাকসেস পাবেন। অর্থাৎ, তারা এর মাধ্যমে ফোনের সব ডেটা দেখতে পারবেন এবং ক্যামেরা ও মাইক্রোফোনের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ করবেন।

এপ্রিল থেকে জুলাই মাসের মধ্যে এই সফটওয়্যার ত্রুটি দূর করতে প্যাঁচ উন্মুক্ত করেছে কোয়ালকম। কিন্তু অ্যান্ড্রয়েড ইকোসিস্টেমের ভিন্নতার কারণে এখনো অধিকাংশ অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীর কাছে প্যাঁচ যায়নি।

নেক্সাস ডিভাইসের জন্য গুগল তিনটি প্যাঁচ ছাড়লেও এখনো ত্রুটি থেকে গেছে। অ্যান্ড্রয়েড ফোন নির্মাতারা এসব প্যাঁচ পেলেও তারা অনেক দেরিতে হালনাগাদ করে।

চেক পয়েন্টের মোবিলিটি প্রোডাক্ট ব্যবস্থাপনার প্রধান মাইকেল শাওলভ বলেন, এই মুহূর্তে যাদের কাছে ডিভাইস আছে, কেউ পূর্ণ নিরাপদ নয়।

কোয়ালকমের আরেক কর্মকর্তা জানান, নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিতকরণ আমাদের অন্যতম লক্ষ্য। গবেষকদের মাধ্যমে আমরা এই হুমকি সম্পর্কে সচেতন। এ বছরের ফেব্রুয়ারি ও এপ্রিলের মধ্যে হুমকি সম্পর্কে তথ্য আসে। এপ্রিল থেকে জুলাইয়ের মধ্যেই সবার নিরাপত্তার জন্যে ৪ ধরনের ব্যবস্থাও গ্রহণ করা হয়েছে।

আগামীতেও বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে নিরাপত্তাসংক্রান্ত অন্যান্য বিষয় নিয়ে আমাদের তৎপরতা অব্যহত থাকবে।

তথ্যসূত্র: রিকোড, সিনেট।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY