gmail

২০১৬ সালে গুগল ঘোষণা করেছে যে, প্রতিমাসে ১০০ কোটি লোক জিমেইল ব্যবহার করছে। কিন্তু জনপ্রিয় এই ইমেল সেবার বিশেষ কিছু ফিচার ( Hidden Gmail Features, Tips, Tricks) রয়েছে যা আমরা অনেকেই জানি না ৷ আসুন দেখা যাক সেই ফিচারগুলো:

ইমেল এডিট – undo send:
ইমেল লেখার পর send বোতামে ক্লিক করার পরে কোনও ভুল চোখে পড়লে, নতুন কোন লেখা যোগ করতে হলে, ভুল ব্যক্তিকে ভুল করে পাঠানো বা যাই হোক না কেন ইমেল সেন্ড করার পরেও তা কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে আনডু (undo) করা যায়।  এই ক্ষেত্রে Gmail-এর  Settings>General গিয়ে undo send অপশনটি “Enable Undo Send” সিলেক্ট করুন এবং এর সাধে ৫-৩০ সেকেন্ড সময়ও নির্ধারণ করা যায়।

gmail undo sendসময় বাঁচাতে – canned responses:
অনেক সময় দেখা যায়, একই ইমেল একাধিক ব্যক্তিকে পাঠাতে ইমেল বারবার ইমেল লিখছি ৷ এই ক্ষেত্রে সময় বাঁচাতে ইমেইলটি save করে canned responses হিসেবে রাখা যায় ৷ এরপর প্রয়োজনমতো এডিট করে তা একাধিক বার ব্যবহার করা যায় ৷ canned responses ফিচারটি পাওয়া যাবে settings>labs>canned responses গন্তব্যে ।

labsঅফলাইনেও Gmail ব্যবহার:
Gmail-এর অফলাইন অ্যাপটি ব্যবহার করে অনলাইনের পাশাপাশি অফলাইনেও Gmail ব্যবহার করা যায় ৷ এই অ্যাপ-এর সাহায্যে অফলাইন থেকেও Gmail-এর পুরনো ইমেলও দেখা যায়৷ পাশাপাশি, নতুন বা কোনও ইমেইলের  জবাব লিখে পরে অনলাইনে গেলে তা নির্দিষ্ট গন্তব্যে পাঠানো যায়।

ইনবক্স নোটিফিকেশন বন্ধ রাখতে হলে:
Gmail-এ নতুন কোনও ইমেল এলে তার সংখ্যা menu bar-এর inbox লেখা শব্দের পাশে নম্বর আকারে প্রদর্শন করে। এই নম্বর দেখার পরই মনের মধ্যে ইমেলটি দেখার বাসনা বাড়তে থাকে ৷ ফলে কাজে মনোযোগ দেয়া যায় না । এই অবস্থা এড়ানোর জন্য email pause অপশনটি ব্যবহার করা যায় ৷

অপছন্দের ই-মেল বন্ধ করতে হলে:
অনেক সময় নিজের অজান্তেই না চাইলেও অপ্রয়োজনীয় ইমেলে ভরে যায় ইনবক্স ৷ এমন অনাকাঙ্খিত পরিস্থিতি থেকে বাঁচতে হলে ভিজিট করুন unroll.me ওয়েবসাইটটি ৷ এখানে sign up- করে অপ্রোজনীয় ইমেল প্রাপ্তি থেকে সহজেই রেহাই পাবেন ৷

2-step verification চালু করুন:
অনেকেই Google Drive – এ নিজের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য, ছবি, ভিডিও এমনকি ব্যাঙ্ক সংক্রান্ত তথ্য জমা রাখেন ৷ এই কারণে ইমেলের নিরাপত্তা ব্যবস্থা মজবুত রাখা প্রয়োজন, যাতে করে সহজেই কেও আপনার ইমেইলে log in করতে না পারে। Gmail – এর 2-step verification ফিচার চালু করলে মোবাইলে আসা কোড ব্যবহার করেই ইমেল চালু করতে হয়। ফলে হ্যাকারদের হামলা থেকে বাঁচা সম্ভব হয়।

 

NO COMMENTS