ফেসবুকে চাকরি পাওয়ার ৫টি উপায়

বিশেষ কিছু উপায়ে আপনিও ডাক পেতে পারেন ফেসবুক থেকে। দারুণ পরিবেশ, কর্মীদের সুযোগ-সুবিধা, কাজের স্বাধীনতা, আন্তরিক সহকর্মী আর অসাধারণ কর্ম-পরিবেশের কারণে ফেসবুক এক আকাঙ্ক্ষিত প্রতিষ্ঠান। গ্লাসডোরের এক পোস্টে ফেসবুকের ভাইস প্রেসিডেন্ট অব পিপল লোরি গোলার দিয়েছেন সেই পরামর্শ। এর জন্যে বেশ কয়েকটি কাজ করতে হবে। তার সম্পর্কে ধারণা নিন।

নতুন কিছু গড়ে তুলুন এবং শিখতে থাকুন
ফেসবুক তার কর্মীদের মাঝে দুটো বিষয় একই সঙ্গে দেখতে চায়। কর্মী যেমন নতুন কিছু গড়ে তুলতে থাকবেন, তেমনি শিখতে থাকবেন। গোলারের মতে, এর অর্থ হলো আমারা কখনই কাজকে শেষ করে আনতে পারি না। সবস সময় নতুন কিছু শিখতে থাকবো এবং গড়তে থাকবো। আমরা কেবল নতুন কিছু নিয়ে ভাবতেই থাকি। এ পদ্ধতি কিন্তু বেশ কাজ করে। তাই নতুন কিছু করে যেতে হবে আর শিখতে হবে। আপনার কর্মোদ্যম ফেসবুকের নজর কাড়বেই। ফেসবুক আপনাকে চিনে নেবে।

ফেসবুককে সঠিকভাবে পর্যবেক্ষণ 
গ্লাসডোরের সঙ্গে সাক্ষাৎকারে লোরি জানান, ফেসবুকের সংস্কৃতি প্রযুক্তি দুনিয়ায় যেন এক কল্পনার জগত। গোটা বিশ্বের কাছেও তাই। একে ঘিরে অনেকে ভালো ভালো নিবন্ধ প্রকাশিত হয়। এগুলো মনোযোগের সঙ্গে পড়তে হবে। এই মুহূর্তে ফেসবুকের যা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ তার বিস্তারিত জানতে পারবেন বিভিন্ন বিশেষজ্ঞের নিবন্ধ থেকে। এগুলো পড়ুন।

রিজ্যুমিতে নিজেকে প্রকাশ করুন
এই জিনিসটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কেবল নিজের গুণগান লিখে গেলে হবে না। আপনার আচার-আচরণ আর মনের ভেতরটা যেন উঠে আসে রিজ্যুমিতে। অনেক ক্ষেত্রে ফেসবুক রিজ্যুমিতে আপত্তিকর ভাষাও গ্রহণ করে। ইন্টারভিউয়েও তাই। কারণ এর মাধ্যমে মানুষের অদেখা রূপটিও দেখা যায়।

ভারি আলাপচারিতার প্রস্তুতি নিন
গ্লাসডোরকে লোরি বলেন, যদি ফেসবুক থেকে যোগাযোগ করা হয় তবে ভারি আলাপচারিতার জন্য প্রস্তুতি নিন। ফেসবুক আপনাকে যেকোনো প্রশ্ন করতে পারে। সিরিয়াস বিষয় হতে পারে। আপনিও সিরিয়াস থাকুন। এটাকেই ফেসবুকের সামাজিক প্রথা হিসাবে বিবেচনা করতে পারেন।

ফেসবুকে নিজের কিছু করুন
নতুন কোনো চাকরি পেয়েছেন? নতুন কিছু করছেন? প্রযুক্তি বিষয়ক কোনো কোর্স করেছেন? এ সবই ফেসবুকে দিয়ে দিন। ফেসবুক তার ব্যবহারকারীদের মধ্য থেকেও কিন্তু কর্মী খুঁজে নেয়। তাদেরকেই বেছে নেয় যাদের সম্পর্কে বিস্তারিত ও সাম্প্রতিক তথ্য থাকে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY