যেভাবে স্মার্টফোনের অভ্যন্তরীণ স্টোরেজ বাড়াবেন

স্মার্টফোনের যে বিষয়টি সবাইকে চিন্তিত করে তা হলো অভ্যন্তরীণ স্টোরেজের স্বল্পতা। এটা সেটা করে সবাই স্টোরেজের ঘাটতিতে ভোগেন। (How to increase smartphone internal storage) অথচ ফোন চালাতে কিন্তু অনেক জায়গার দারকার পড়ে না। কয়েকটি সাধারণ পদ্ধতি মেনে চললেই আপনার ফোনের স্টোরেজ আবারো আগের মতোই হয়ে যাবে। ভেতরে জায়গার অভাবে ভুগতে হবে না। জেনে নিন কিছু সাধারণ নিয়ম।

১. মেমোরি কার্ড সংযুক্ত করুন
এটা কিন্তু বিকল্প এক ব্যবস্থা। মোবাইলে মাইক্রোএসডি কার্ড স্লট থাকলে সেখানে বাড়তি মেমোরি লাগিয়ে নিন। এটা আসলে বলে দেওয়ার প্রয়োজন পড়ে না। তবুও তো একটা সমাধান।

২. ইউএসবি ওটিজি স্টোরেজ

এটাও বিকল্প ও কার্যকর ব্যবস্থা। অনেক মোবাইলের মাইক্রোএসডি কার্ড স্লটের সুবিধা থাকে না। সাধারণ দেখা যায়, স্টোরেজের দখল নেয় ভিডিও আর হাই রেজ্যুলেশন ছবি। এগুলো চাইলেই আপনি ইউএসবি ওটিজি স্টোরেজে রেখে দিতে পারেন। তবে দেখে নিতে হবে যে, আপনার মোবাইলটি ওটিজি সাপোর্ট করে।

৩. অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ, হিস্ট্রি এবং কেচ পরিষ্কার করুন

একটু অনুসন্ধান চালিয়ে দেখুন, আপনার ফোনের অনেক অ্যাপ আসলে দরকার নেই। এগুলো অযথাই ডাউনলোড করে ফেলে রেখেছেন। এমন কিছু অ্যাপ রয়েছে যার কোনো দরকারই আসলে নেই। এসব ফেলে দিন। ব্যবহারের ফলে হিস্ট্রি এবং কেচ ভরে যায়। এগুলো বেশ জায়গা দখল করে। এগুলোও মুছে ফেলুন। মোবাইলের সেটিংস থেকে স্টোরেজে গিয়ে বিভিন্ন তথ্য দেখে নিন। অ্যাপস থেকে অপ্রয়োজনীয় অ্যাপগুলো ফেলে দিন। ‘কেচড ডেটা’য় ক্লিক করে অ্যাপের কেচ-এ জমা পড়া জিনিসপত্র মুছে ফেলুন। বড় ধরনের অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ মুছতে পারলে বেশ জায়গা মিলবে।

৪. ক্লাউড স্টোরেজ ব্যবহার

অদিকাংশ মানুষ এখানেই সমাধান পেতে পারে। স্টোরেজে যা রাখতে হবে, তা ক্লাউডে রেখে দিন। ড্রপবক্স বা স্কাইড্রাইভ খুব সহজেই ব্যবহার করতে পারেন। ক্লাউড স্টোরেজে সাইন আপ করুন। বেশ কিছু স্টোরেজ ফ্রি মিলবে। এতেই অনেক কিছু রেখে দিতে পারবেন।

৫. টার্মিনাল এমুলেটর অ্যাপের ব্যবহার
অ্যান্ড্রয়েডে অভ্যন্তরীণ স্টোরেজ থেকে কিন্তু জায়গা কিন্তু ধার করা যায় না? অবশ্যই যায় বলেই মত দেন বিশেষজ্ঞরা। একটু জটিল মনে হলেও সহজে করতে পারবেন। এসডি কার্ডের খালি জায়গা যোগ করতে পারে টার্মিনাল এমুলেটর অ্যাপ। এর জন্য অবশ্য ক্লাস ৪ কিংবা তারও উচ্চ সংস্করণের মেমোরি কার্ড থাকতে হবে। আর টার্মিনাল এমুলেটর অ্যাপটি মোবাইলে ইনস্টল করে নিতে হবে। এবার মিনিটুল পার্টিশন উইজার্ড সফটওয়্যার দিয়ে মেমোরি কার্ড পার্টিশন করে নিতে হবে। এবার ফোনে টার্মিনাল এমুলেটর অ্যাপটি ইনস্টল করে নিন। এটাকে চালু করুন। এবার ‘su’ লিখে এন্টার চাপুন। আবারো ‘a2sd xdata’ লিখে এন্টার চাপুন। এই কমান্ডগুলো দিয়ে এন্টার চাপা মাত্র জানতে চাওয়া হবে আপনি কি আরো এগিয়ে যেতে চান কিনা? এ ক্ষেত্রে ‘y’ টাইপ করে এন্টার চোপবেন। এখন রিবুট করলে ফোনের পর্দায় যে ছবি দেখা যায়, অনেকটা তেমন ছবিই দেখা যাবে। সেখানে আবারো ‘y’ চেপে ফোনটি রিস্টার্ট করুন। বাড়তি মেমোরি যোগ হয়ে গেছে। দেখে নিতে মেনু থেকে সেটিংস এবং সেখান থেকে স্টোরেজে গিয়ে দেখুন।

NO COMMENTS