পুরো জানুয়ারি থাকবে ইন্টারনেটের ধীরগতি

Credit:- ICT news

ইন্টারনেটে ধীরগতি ২০ জানুয়ারি স্বাভাবিক হওয়ার কথা থাকলেও ক্যাবল মেরামত না হওয়ায় গতি কমই থাকছে। ইন্টারনেটে এই ধীরগতি ৩০ জানুয়ারি স্বাভাবিক হতে পারে বলে ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (আইএসপিএবি) সূত্রে জানা গেছে।

ভারত থেকে ২৮০ গিগাবিটস (জিবিপিএস) আমদানি করে বাংলাদেশ। সর্বমোট ৪০০ জিবিপিএস ইন্টারনেট ব্যবহৃত হয় বাংলাদেশে, বাকি ১২০ জিবিপিএস আসে রাষ্ট্রনিয়ন্ত্রিত বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবল কোম্পানি লিমিটেড এর মাধ্যমে। বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবল কোম্পানি ছয়টি ভারতীয় কেবলের সঙ্গে সংযুক্ত যার তিনটি বিগত তিন সপ্তাহে অকেজো হয়ে পড়ে।

ইন্টারনেট গেইটওয়ে কোম্পানি ফাইবার অ্যাট হোমের প্রধান প্রযুক্তি কর্মকর্তা সুমন আহমেদ সাবির সাংবাদিকদের বলেন, জানুয়ারির তৃতীয় সপ্তাহে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে পারে বলে এর আগে আশা করা হলেও মেরামত কাজ এখনো শেষ না হওয়ায় এ সমস্যা আরো কিছুদিন চলতে পারে।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক টেরেস্ট্রিয়াল কেবলে (আইটিসি) ব‌্যান্ডউইডথ সরবরাহকারী ভারতীয় প্রতিষ্ঠান ভারতী এয়ারটেলের কাজ কয়েকদিনের মধ্যে শেষ হতে পারে। আর এ মাসের শেষ নাগাদ টাটা ইনডিকমের লাইন ঠিক হতে পারে।

কেবল কেটে যাওয়ার পরে বাংলাদেশের ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা গত জানুয়ারির ৪ তারিখ থেকে ধীরগতির ইন্টারনেটের সম্মুখীন হচ্ছে। এর আগে ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠন আইএসপি অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (আইএসপিএবি) বলেছিল, কেবল কাটা পড়ায় বাংলাদেশের গ্রাহকদের ২০ জানুয়ারি পর্যন্ত ভুগতে হতে পরে।

ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (আইএসপিএবি) সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল হক বলেন, গ্রাহকরা ইন্টারনেটের গতি কম পেয়ে আমাদেরকে ফোন দিয়ে খারাপ ব্যবহার করছেন। তাদেরকে ক্যাবল কাটা পড়ার বিষয়টি শতবার বোঝার চেষ্টা করলেও তারা বুঝতে চান না। এছাড়া ক্যাবল কাটা পড়ায় আমাদেরকে বেশি দামে ব্যান্ডউইথ কিনতে হচ্ছে বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানি লিমিটেড (বিএসসিসিএল) এর কাছ থেকে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY