Credit:-ICT News

বগুড়ায় এক মেডিকেল কলেজ ছাত্রীকে জোর করে বিয়ে ও ‘আপত্তিকর’ ছবি তুলে ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে ঢাকা থেকে বেসরকারি টেলিভিশনের একজন জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ও সংবাদ উপস্থাপককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

মামলা সূত্রে জানা যায়, বগুড়ার টিএমএসএস মেডিকেল কলেজ পড়–য়া এক হিন্দু ছাত্রীর সঙ্গে ফেসবুকের মাধ্যমে প্রেমের সম্পর্কে জড়ান ওই টিভি সাংবাদিক। একপর্যায়ে ছাত্রীটিকে ধর্মান্তরিত করে বিয়েও করেন তিনি। কিন্তু মেয়ের পরিবার বিয়ে মেনে না নেয়ায় পরে তাদের মধ্যে ডিভোর্স হয়ে যায়। এরপর ওই সাংবাদিক বিয়ের পর গোপনে ধারণ করা ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে দেন অভিযোগে তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইনে বগুড়া সদর থানায় মামলা করেন ওই তরুণী।

মামলার সূত্র ধরে বগুড়া সদর থানার পুলিশ ওই সাংবাদিককে ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার করে শুক্রবার রাতে বগুড়ায় আনে। তিনি এখন বগুড়া কারাগারে। মামলায় আরো অভিযোগ করা হয়,  টিভি সাংবাদিকের ডাকে ওই মেডিকেল ছাত্রী গত ২১ সেপ্টেম্বর ঢাকায় গেলে তাকে বাসায় নিয়ে আটকে রেখে আপত্তিকর ছবি তোলা হয়।

একপর্যায়ে ওই ছাত্রী পরীক্ষার কথা বলে ১৮ অক্টোবর বগুড়ায় চলে আসেন। এরপর তাকে ব্লাকমেইল করতে থাকেন ওই সাংবাদিক। এতে নিজের নিরাপত্তা চেয়ে ছাত্রীটি গত ২৪ অক্টোবর বগুড়া সদর থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।

চলতি মাসের ৭ তারিখ ওই সাংবাদিক আপত্তিকর ছবি ও নানা তথ্য ফেসবুকসহ কয়েকটি ব্লগ ও অন্যান্য মাধ্যমে ছড়িয়ে দেন। এ ঘটনায় ১১ নভেম্বর তার বিরুদ্ধে তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ (২) ধারায় ব্লগ ও ফেসবুকে আপত্তিকর ছবি-তথ্য প্রকাশের দায়ে মামলা করেন ওই ছাত্রী।

ওসি এমদাদুল জানান, এরপর ১১ নভেম্বর ওই ছাত্রী সাইফুল মাহমুদের বিরুদ্ধে বিরুদ্ধে তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইনে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তাঁর মিথ্যা ও আপত্তিকর ছবি এবং তথ্য প্রকাশের অভিযোগে একটি মামলা করেন। ওই মামলায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY