Chief-Executive-Officer-(CEO)-Grameen-phone
Photo credit: Telenor Group

গ্রামীণফোনের নতুন প্রধান নির্বাহী হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন মাইকেল ফোলি (New chief executive officer (CEO) Grameenphone, Mr. Michael Foley )। প্রতিষ্ঠানটির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয় যে, আর গত অক্টোবর থেকে অস্থায়ী সিইও হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসা পেটার-বি ফারবার্গ কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন বলে সোমবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

আর গত অক্টোবর থেকে অস্থায়ী সিইও হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসা পেটার-বি ফারবার্গ কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন বলে সোমবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

গ্রামীণফোন জানিয়েছে, ছাপ্পান্ন বছর বয়সী ফোলির এই নিয়োগ আগামী ২৬ মে থেকে কার্যকর হবে। উপ প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে তিনি সঙ্গে পাবেন ইয়াসির আজমানকে। আজমান গ্রামীণ ফোনের প্রধান বিপণন কর্মকর্তা হিসেবেও দায়িত্ব পালন করবেন।

মন্ট্রিয়লের ম্যাকগিল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্গানাইজেশনাল সাইকোলজিতে স্নাতক ফোলি টেলিনরের সঙ্গে কাজ করছেন ২০১৪ সাল থেকে। টেলিযোগযোগ ও গেইমিং খাতে বিক্রয়, বিপণন ও পরিচালনায় এই কানাডীয় নাগরিকের ৩০ বছরের অভিজ্ঞতা রয়েছে।

ফোলি বলেন, “কানেকটিভিটি ও ডিজিটাইজেশন যখন বাংলাদেশকে বদলে দিচ্ছে, তখন গ্রামীণফোনের অংশ হতে পেরে আমি সম্মানিত বোধ করছি।”

গতবছর ১ নভেম্বরে রাজীব শেঠির কাছ থেকে অস্থায়ী সিইও হিসেবে দায়িত্ব বুঝে নিয়েছিলেন ফারবার্গ। ছয় মাসের মাথায় তাকে বোর্ড চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দিয়ে সিইও হিসেবে আনা হল বুলগেরিয়া ও পাকিস্তানে টেলিনরের একই পদে দায়িত্ব পালন করে আসা মাইকেল ফোলিকে।

টেলিনর গ্রুপের প্রেসিডেন্ট ও সিইও সিগভে ব্রেক্কে বলেন, “বাংলাদেশে ডিজিটাইজেশনের পরবর্তী ধাপে পৌঁছানোর প্রক্রিয়ার মধ্যে মাইকেল যে গ্রামীণফোনকে নেতৃত্ব দেওয়ার চ্যালেঞ্জ নিয়েছে, তাতে আমি খুবই আনন্দিত। গ্রামীণফোন বর্তমানে একটি শক্তিশালী অবস্থানে আছে এবং কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে এই গতিধারা বজায় রাখাই হবে মাইকেলের কাজ।”

১৯৯৭ সালের ২৬ মার্চ যাত্রা শুরু করা গ্রামীণফোনের গ্রাহক সংখ্যা বর্তমানে পাঁচ কোটি ৯০ লাখের বেশি, যা দেশের মোট মোবাইল ফোন সেবাগ্রহীতার প্রায় অর্ধেক। এ কোম্পানির ৫৫ দশমিক ৮ শতাংশ শেয়ারের মালিক নরওয়ের টেলিনর।

NO COMMENTS