Samsung's de-facto chief Jay Y. Lee five-year jail
Image credit: Doordarshan News/@DDNewsLive /twitter

আজ শুক্রবার (২৫ আগস্ট) ৪৯ বছর বয়সী স্যামসাং গ্রূপের উত্তরাধিকারী লি জি ইয়ংকে (Lee Jae-yong) দুর্নীতির দায়ে পাঁচ বছরের সাজা দিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার একটি আদালত।

লির বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, তিনি সরকারি সুবিধা পাওয়ার জন্য তখনকার প্রেসিডেন্ট পার্ক জিউন-হাইয়ের ঘনিষ্ঠ বান্ধবী চোই সুন সিল পরিচালিত কয়েকটি ফাউন্ডেশনে ৩ কোটি ৬৩ লাখ ডলার অনুদান দিয়েছেন।

ওই অভিযোগে গত জানুয়ারিতে কয়েক দফা জিজ্ঞাসাবাদের পর ফেব্রুয়ারিতে লির বিচার শুরু করে আদালত। তখনই তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ছয় মাসের শুনানি শেষে সিউলের সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক কোর্ট শুক্রবার এই রায়ে বলেছে, স্যামসাং ইলেক্ট্রনিক্সের ভাইস প্রেসিডেন্ট লি জি ইয়ং সুবিধা পাওয়ার জন্য দক্ষিণ কোরিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট পার্ক জিউন হাইকে ঘুষ দিয়েছিলেন।

দুর্নীতির দায়ে অভিশংসনের পর দক্ষিণ কোরিয়ার প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট পার্ক জিউন-হাইকে গত মার্চ মাসে অপসারণ করা হয়।

৪৯ বছর বয়সী লি বরাবরই ঘুষ দেওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন। চলতি বছর ১৭ ফেব্রুয়ারি গ্রেপ্তার হওয়ার পর থেকে তিনি কারাগারে আছেন।

দক্ষিণ কোরিয়ার আইন অনুযায়ী, তিন বছরের বেশি কারাদণ্ড স্থগিত করা যায় না।

স্যামসাংয়ের কর্ণধার লি কুন হি ২০১৪ সালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে কার্যত অবসরে যাওয়ার পর থেকে তার ছেলে লিই বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ এই কোম্পানির দেখভাল করে আসছিলেন। তার চেয়ারম্যান হওয়ার পথ প্রশস্ত করতে পুনর্গঠনের মধ্য দিয়ে যাচ্ছিল স্যামসাং গ্রুপ।

লির এই কারদণ্ডের রায় প্রতিষ্ঠানটির জন্য বড় একটি ব্যবসায়িক ধাক্কা হয়ে এসেছে। রায় ঘোষণার কিছুক্ষণের মধ্যেই স্যামসাংয়ের শেয়ার (Samsung Electronics’ (SSNLF))পড়ে গেছে ১ শতাংশ।

এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করা হবে বলে জানিয়েছেন লির একজন আইনজীবী।

তিনি বলেন, “এই রায় অগ্রহণযোগ্য এবং আমার বিশ্বাস, উচ্চ আদালতে আমার মক্কেল নির্দোষ প্রমাণিত হবেন।”

 

NO COMMENTS