‘সুপারমুন’ উছলে পড়ে আলো

Credit:- ICT News

চাঁদের আলোতে সিক্ত হলেন প্রকৃতিপ্রেমীরা। চাঁদের হাসি বাঁধ ভাঙলো আজ ।  উপভোগ করলেন সবচেয়ে বড় চাঁদটি। গত প্রায় সত্তর বছরের মধ্যে পৃথিবীর কাছাকাছি এত বড় আর উজ্জ্বল (Enlightened) চাঁদ দেখা যায়নি। সুপারমুন খ্যাত এই বড় ও উজ্জ্বলতম চাঁদটি পৃথিবীর খুব কাছে চলে আসায় খালি চোখেই দেখা গেছে সেটি (Blessed night with A Enlightened Moon)

সুপারমুন হলে কী হয়? এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক এফ আর সরকার বলেন, সুপারমুন হলে চাঁদ পৃথিবীর কাছাকাছি আসে। সাধারণ সুপারমুনের ক্ষেত্রে চাঁদ ১২ শতাংশ বড় ও ১৪ শতাংশ উজ্জ্বল দেখায়। কিন্তু এবারের সুপারমুন ১৪ শতাংশ বড় ও ৩০ শতাংশ উজ্জ্বল দেখাবে। সুপারমুন হওয়ার সময় তীব্র জোয়ার-ভাটা প্রত্যক্ষ করা যাবে।

জ্যোতির্বিদেরা আশা করছেন, আজ সোমবার চাঁদ পৃথিবীর ২ লাখ ২১ হাজার ৫২৩ মাইলের মধ্যে আসবে। ব্যতিক্রমী ও বড় আকারের এই চাঁদ সুপারমুন নামে পরিচিত।

বাংলাদেশ অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল সোসাইটির ভাষ্য, বাংলাদেশ থেকেও আজ রাতে সুপারমুন দেখা যাবে। আকাশ পরিষ্কার থাকলে সব এলাকা থেকেই চাঁদের এ শোভা উপভোগ করতে পারবে মানুষ। বাংলাদেশ সময় আজ সন্ধ্যা সাতটা থেকে দেখা যাবে সুপারমুন।

মহাজাগতিক বিবেচনায় গুরুত্বপূর্ণ এ ঘটনা পর্যবেক্ষণের জন্য মুখিয়ে আছেন জ্যোতির্বিদেরা। তাঁদের ব্যাখ্যা অনুযায়ী, চাঁদ পৃথিবীর নিকটতম স্থানে এলেই সুপারমুন দেখা যায়। প্রদক্ষিণরত চাঁদটি নিজের কক্ষপথে পৃথিবীর যত কাছে, ততই বেশি উজ্জ্বল ও বড় আকারে দৃশ্যমান হয়। ডিম্বাকার কক্ষপথের কারণে চাঁদের আকৃতি একেক সময় একেক রকম দেখায়।

জ্যোতির্বিদদের মতে, ১৯৪৮ সালের পর পৃথিবীর এতটা কাছে আসছে চাঁদ। যুক্তরাষ্ট্রে সোমবার ভোরের দিকে এবং এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে সোমবার রাতে সুপারমুন দেখা যাবে। নাসার তথ্য অনুযায়ী, ফুল মুন বা পূর্ণিমা ঘটবে (১৩: ৫২ জিএমটি) বাংলাদেশ সময় ৭টা ৫২ মিনিটে। আজ চাঁদের সঙ্গে পৃথিবীর দূরত্ব হবে ৩ লাখ ৫৬ হাজার ৫০৮ কিলোমিটার।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY