রাশিয়ান ডাক বিভাগে “র‍্যানসমওয়্যার” হামলা

ওয়ানাক্রাই ম্যালওয়্যার আক্রমণের শিকার হয়েছে রুশ পোস্টাল সার্ভিস।(winecry malware attacked in Russian postal service) রুশ পোস্টাল সার্ভিসের তিন কর্মীর দাবি, রাষ্ট্রায়ত্ত রাশিয়ান পোস্ট-এর কিছু কম্পিউটার এখনও অকেজো, কিন্তু তাদের মধ্যে কেউ এতে আক্রান্ত হননি।

সংস্থাটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, পূর্ব সতর্কতার জেরে কিছু টার্মিনাল বন্ধ রাখা হয়েছে। এ দিকে রাশিয়ার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আর রাষ্ট্রীয় রেল সেবাও এই সাইবার আক্রমণে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে বলে খবর প্রকাশিত হয়েছে।

মস্কো’র এক কর্মী রয়টার্স-কে বলেন, “উচ্চপদস্থরা আমাদের কল করেন। এই টার্মিনালগুলো তাৎক্ষণিকভাবে বন্ধ করে দিতে বলেছেন। তারা বলেছেন এই ভাইরাস এগুলোকে আক্রান্ত করেছে।”

“তারা আবারও কল দেন আর বলেন আমরা এগুলো চালু করতে পারি। আমরা তা করেছি কিন্তু আপনারা দেখতে পারেন এগুলো এখনও কাজ করছে না।”

সারা বিশ্বে এখন পর্যন্ত তিন লাখ কম্পিউটারকে আক্রান্ত করেছে এই ম্যালওয়্যার। এর মধ্যে ২০ শতাংশই রাশিয়ায় বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এর আগে বিভিন্ন সাইবার হামলায় যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে রাশিয়া, চীন আর উত্তর কোরিয়াকে দায়ী করা হয়েছে। এবারের এই ‘র‍্যানসমওয়্যার’ হামলার জন্য কারা দায়ী তা নিয়ে জল্পনা-কল্পনার মধ্যে উত্তর কোরিয়ার নাম শোনা যাচ্ছে। বিবিসি’র এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, ল্যাজারাস গ্রুপ নামে অত্যন্ত উঁচুমানের একটি হ্যাকারগোষ্ঠী এই ঘটনার পেছনে ভূমিকা রেখে থাকতে পারে। চীনের এই গোষ্ঠী উত্তর কোরিয়ার পক্ষে তৎপরতা চালায় বলে ব্যাপকভাবে ধারণা করা হয়।

২০১৬ সালে সাইবার হামলা চালিয়ে বাংলাদেশের রিজার্ভ চুরির ঘটনা ও ২০১৪ সালে সনির হলিউড স্টুডিওতে বহুল আলোচিত সাইবার হামলার সঙ্গে জড়িয়ে ‘ল্যাজারাসের’ নাম এসেছিল।

এর আগে এই র‍্যানসমওয়্যার হামলায় রাশিয়ার কিছু করার ছিল না বলে দাবি করেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। হামলার মূল সফটওয়্যার মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর ‘তৈরি’ হওয়া নিয়ে সমালোচনাও করেন তিনি।

পুতিন বলেন, “এই হুমকির উৎস হিসেবে মাইক্রোসফটের শীর্ষস্থানীয়রা সরাসরি বক্তব্য দিয়েছেন, তারা বলেছেন এই ভাইরাসের মূল উৎস হচ্ছে মার্কিন বিশেষ বাহিনীগুলো।”

র‍্যানসমওয়্যার হামলা সংঘটিত হওয়ার খবর প্রকাশের পর মাইক্রোসফট প্রেসিডেন্ট ব্র্যাড স্মিথ এক বিবৃতিতে বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা সংস্থা এনএসএ’র বানানো কোড এই আক্রমণে ব্যবহার করা হয়েছে। স্মিথ-এর এই মন্তব্য টেনেই যুক্তরাষ্ট্রের সমালোচনা করেন পুতিন।

গবেষকদের মতে, নথি ধ্বংসের অংশ হিসেবেই এই ডেটা ফাঁস হয়েছিল।

চীনের বেইজিংয়ে এক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে পুতিন বলেন, “গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর বিশেষভাবে বানানো একটি বোতল থেকে একটি দৈত্য-কে বের হতে দেওয়া হয়েছে, যা এর নির্মাতাদেরই ক্ষতি করতে পারে।”
“এটি একদমই রাশিয়ার বিবেচনার বিষয় নয়।”

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY