সরকারি উদ্যোগে বাংলাদেশ ডাক বিভাগ চালু করেছে ডিজিটাল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস ‘নগদ’। অধিকতর নিয়ন্ত্রণ এবং শৃঙ্খলা বজায় রেখে মানুষকে আরও বেশি লেনদেনের স্বাধীনতা প্রদানের লক্ষ্য নিয়ে অনানুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করে ১ অক্টোবর ২০১৮ সালে।

যারা অনলাইনে ব্যবসা করেন এবং লিমিট নিয়ে সমস্যায় থাকেন তাদের জন্য এটা খুবই উপযোগী একটা সেবা।

বিকাশ, রকেটসহ অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিং এর সেবা পরিচালিত হয় বাংলাদেশ ব্যাংকের বিধি বিধান অনুযায়ী। কিন্তু ‘নগদ’ পরিচালিত হচ্ছে বাংলাদেশ সরকারের ‘বাংলাদেশ টিউনাল অ্যাক্ট অ্যামেন্ডমেন্ট ২০১০’ এর ৩ এর ২ এফ ধারার সুদৃঢ় এবং সুস্পষ্ট আইন অনুযায়ী।

কিভাবে ‘নগদ’ হিসাব খুলবেন?
‘নগদ’ হিসাব খুলতে হলে আপানার মোবাইলের সংযোগসহ কোন একটা ‘নগদ উদ্যোগটা’ পয়েন্টে যেতে হবে। সঙ্গে নিতে হবে জাতীয় পরিচয়পত্র, এনআইডি’র ফটোকপি এবং এক কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি। এবার ‘নগদ উদ্যোগটা’ পয়েন্ট কর্তৃক সরবরাহকৃত KYC ফর্ম পূরণ করুন নির্দেশমত। কোন ধরনের টেকনিক্যাল সমস্যা না থাকলে সঙ্গে সঙ্গে আপনার হিসাবটি একটিভ হয়ে যাবে। সিস্টেম এ পুরো প্রোফাইল আপডেট না হওয়া পর্যন্ত পূর্ণাঙ্গ সুবিধা পাওয়া যাবে না। এই সময়টাকে বলা হয় লিমিট প্রোফাইল। তবে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে সিস্টেম এ প্রোফাইল আপডেট হয়ে যাবে।

কিভাবে ‘নগদ’ হিসাব ব্যবহার করবেন?

‘নগদ’ হিসাব ব্যবহার করতে হলে আপনার মোবাইল ফোনের সংযোগ থেকে USSD কোড *১৬৭# তে কল করুন অথবা প্লে-স্টোর থেকে নগদ অ্যাপ ইন্সটল করুন। তার আগে আপনার হিসাবটি একটিভ হতে হবে। যে কোন অপারেটরের গ্রাহকরা অ্যাপ ব্যবহার করে ‘নগদ’ হিসাবের মাধ্যমে লেনদেন করতে পারবেন।

গ্রাহক ফি ও উদ্যোক্তা কমিশনঃ

‘নগদ’ এর সার্ভিস ফি বিকাশের চাইতে কম এবং উদ্যোক্তা কমিশন বেশি। নিচে এটা দেখান হলো।

১। ক্যাশ ইনঃ ফ্রি
২। ক্যাশ আউটঃ প্রতি ১, ০০০ টাকার জন্য USSD কোডের জন্য ১৮.০০ টাকা এবং অ্যাপের জন্য ১৭.০০ টাকা।
৩। সেন্ড মানি (পিটুপি) প্রতি লেনদেনের বিপরীতে USSD কোডের জন্য ৪.০০ টাকা এবং অ্যাপ থেকে ফ্রি।
৪। উদ্যোক্তা কমিশনঃ USSD কোড অথবা অ্যাপের মাধ্যমে ক্যাশ ইন, ক্যাশ আউট এর জন্য প্রতি ১, ০০০ টাকার বিপরীতে ৪.২৫ টাকা।

গ্রাহক লেনদেনের লিমিটঃ
১। ক্যাশ ইনঃ
দৈনিক লিমিটঃ প্রতি লেনদেনের লিমিট ৫০, ০০০ টাকা। দৈনিক লিমিট ২৫০, ০০০ টাকা। প্রতিদিন ১০ বার লেনদেন করা যাবে।

মাসিক লিমিটঃ প্রতি লেনদেনের লিমিট ৫০, ০০০ টাকা। মাসিক লিমিট ৫০০, ০০০ টাকা। মাসে ৫০ বার লেনদেন করা যাবে।

২। ক্যাশ আউটঃ
দৈনিক লিমিটঃ প্রতি লেনদেনের লিমিট ৫০, ০০০ টাকা। দৈনিক লিমিট ২৫০, ০০০ টাকা। প্রতিদিন ১০ বার লেনদেন করা যাবে।

মাসিক লিমিটঃ প্রতি লেনদেনের লিমিট ৫০, ০০০ টাকা। মাসিক লিমিট ৫০০, ০০০ টাকা। মাসে ৫০ বার লেনদেন করা যাবে।

৩। সেন্ড মানি (পিটুপি):
দৈনিক লিমিটঃ প্রতি লেনদেনের লিমিট ৫০, ০০০ টাকা। দৈনিক লিমিট ২৫০, ০০০ টাকা। প্রতিদিন ৫০ বার লেনদেন করা যাবে।

মাসিক লিমিটঃ প্রতি লেনদেনের লিমিট ৫০, ০০০ টাকা। মাসিক লিমিট ৫০০, ০০০ টাকা। মাসে ১৫০ বার লেনদেন করা যাবে।

৪। মোবাইল ফোন টপ আপঃ
প্রতি লেনদেনের লিমিট ১, ০০০ টাকা। দৈনিক এবং মাসিক কোন লিমিট নেই।